রংপুর টাইমস:

যে ভাবে সেজেছে উত্তরের অক্সফোর্ডখ্যাত রংপুর কারমাইকেল কলেজের শতবর্ষ পূর্তি উৎসব আগামীকাল রোববার ও সোমবার অনুষ্ঠিত হবে।

বহুল প্রতীক্ষিত এই উৎসব বর্ণাঢ্য আয়োজনে সম্পন্ন করতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে কলেজ প্রশাসন।

দু’দিনব্যাপী আয়োজনের রোববার উদ্বোধনী দিন সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত রয়েছে বর্ণিল আয়োজন। এরমধ্যে প্রথম দিনে রয়েছে আনন্দ শোভাযাত্রা, সম্মাননা প্রদান, আলোচনা, স্মৃতিচারণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির।

বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন- বাণিজ্যমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুনশি, সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ, জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ ও জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। এছাড়া স্থানীয় সংসদ সদস্য, বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসনসহ রাজনৈতিক নেতারা উপস্থিত থাকবেন।

প্রথম দিন বিকেল ৩টায় শুরু হবে সাংস্কৃতিক পর্ব। এতে স্বনামধন্য বেতার ও টিভি শিল্পীরা গান ও দলীয় নৃত্য পরিবেশন করবেন। সন্ধ্যা পৌনে ৬টায় মঞ্চে উঠবে ব্যান্ডদল জলের গান।

সমাপনী দিন ৩০ ডিসেম্বর সকাল ১০টা থেকে শুরু হবে বর্ধিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানমালা। এতে কলেজের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের পাশাপাশি দেশের স্বনামধন্য বেতার ও টিভি তারকা শিল্পীরা নাচ ও গান পরিবেশন করবেন। সেই আকর্ষণ হিসেবে থাকবে প্রয়াত শিল্পী আইয়ূব বাচ্চুর ব্যান্ডদল এলআরবি।

শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব মো. আখতারুজ্জামান চৌধুরী  বলেন, ‘হাজার হাজার শিক্ষার্থী এই অনুষ্ঠানের অপেক্ষায় আছে। আমরা পরিচ্ছন্ন একটি অনুষ্ঠান উপহার দিতে চাই।

তিনিআর বলেন, এজন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। রেজিস্ট্রেশন করা সাবেক ও বর্তমান শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা যাতে ভোগান্তি ছাড়া টিশার্ট, ব্যাগ ও ডিরেক্টরি সংগ্রহ করতে পারে, এজন্য বুথের ব্যবস্থা থাকবে।’

উল্লেখ্য, ১৯১৬ সালের ১০ নভেম্বর কারমাইকেল কলেজের যাত্রা শুরু হয়। তৎকালীন অবিভক্ত বাংলার গভর্নর লর্ড থমাস ডেভিড ব্যারন কারমাইকেল ঐতিহাসিক এ কলেজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। তার নামানুসারেই কলেজের নামকরণ করা হয় কারমাইকেল কলেজ।

২০১৬ সালে ১০ নভেম্বর কলেজটি প্রতিষ্ঠার শত বছর পূর্ণ হয়। সাবকে ও বর্তমান শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা শতবর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠানে অংশ নিতে রেজিস্ট্রেশন করেন। কিন্তু বিভিন্ন জটিলতার কারণে নির্ধারিত সময়ে অনুষ্ঠান আয়োজন করতে ব্যর্থ হয় কলেজ প্রশাসন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.