গুগলকে টপকে অনলাইনের শীর্ষে টিকটক

গুগলকে পেছনে ফেলে এখন বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় অনলাইন সাইট টিকটক। চীনের তৈরি ভাইরাল এই ভিডিও অ্যাপটি মার্কিন সার্চ ইঞ্জিন গুগলের চেয়েও বেশি ‘হিট’ বলে জানিয়েছে আইটি নিরাপত্তা কোম্পানি ক্লাউডফ্লেয়ার। বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, র‌্যাংকিং অনুযায়ী টিকটক চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি, মার্চ ও জুন মাসে গুগলকে টপকে এক নম্বরে জায়গা করে নিয়েছে। এরপর জুলাইয়ে গুগল শীর্ষে ফিরলেও আগস্ট থেকে আবারও শীর্ষস্থান দখল করে নেয় টিকটক।

এর আগের বছরের হিসাব অনুযায়ী গুগল ছিল শীর্ষে। এরপর শীর্ষ দশে ছিল টিকটক, অ্যামাজন, অ্যাপল, ফেসবুক, মাইক্রোসফট ও নেটফ্লিক্সসহ কয়েকটি সাইট। নিজস্ব ওয়েব ট্রাফিক পর্যবেক্ষণ টুল ক্লাউডফ্লেয়ার রেডার ব্যবহার করে এ তথ্য জানায় সংস্থাটি।

টিকটকের শীর্ষে ওঠার কারণ- বছরজুড়ে চলা করোনা মহামারি। করোনায় লকডাউনের কারণে মানুষ ঘরের মধ্যে আটকা পড়ে এবং বিনোদনের মাধ্যম হিসেবে টিকটক ব্যবহারের দিকে ঝুঁকে পড়ে।

আরেক কোম্পানি সেন্সর টাওয়ার জানিয়েছে, চলতি বছরের জুলাইয়ের মধ্যে তিনশো কোটি বারেরও বেশি ডাউনলোড হয়েছে টিকটক।

চীনা কোম্পানি বাইটড্যান্সের মালিকানাধীন এই সামাজিক নেটওয়ার্কটির এখন বিশ্বব্যাপী সক্রিয় ব্যবহারকারী একশো কোটিরও বেশি এবং এই সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। চীনে সেন্সরশিপ নীতিমালার কারণে বাইটড্যান্স টিকটকের বিকল্প হিসেবে ডৌয়িন নামে ভিন্ন একটি অ্যাপ ব্যবহার করে।

জনপ্রিয়তার পাশাপাশি এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম প্ল্যাটফর্মটি নিয়ে নানা বিতর্ক রয়েছে। ২০১৯ সালে ভারতে টিকটকের ওপর একটি অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা তদন্ত প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয়, মিউজিক্যালি (টিকটকের অন্য নাম) জেনেশুনে কম বয়সী ব্যবহারকারীদের কনটেন্ট হোস্ট করছে। এজন্য সেসময় অ্যাপটিকে রেকর্ড ৫৭ লাখ ডলার জরিমানা করে যুক্তরাষ্ট্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published.