কালীগঞ্জে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ছাত্রীকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার -২

লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে বাড়িতে একা পেয়ে সপ্তম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে তুলে নিয়ে গিয়ে পরিত্যক্ত বাড়িতে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।
এ ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় ওই স্কুলছাত্রীকে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার(২৫ জানুয়ারী) দুপুরে ওই ছাত্রীর মা (মাজেদা বেগম) বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় দুই জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।

এই ঘটনায় অভিযুক্ত, উপজেলার হররাম এলাকার আঞ্জু মিয়ার ছেলে রিপন মিয়া (২৮) এবং আহম্মদ আলীর ছেলে মনির উদ্দিন (১৮) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের হররাম গ্রামের স্কুল পড়ুয়া সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে গত (২৩ জানুয়ারী) শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাড়িতে একা পেয়ে রিপন মিয়া ও মনির উদ্দিন এলাকার পরিত্যক্ত একটি বাসায় জোরপূর্বক নিয়ে গিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে। বাড়ীর লোকজন অনেক খোঁজাখুঁজি করেও ওই রাতে তার কোন খোঁজ মেলেনি।

রাতভর ধর্ষণের পর অসুস্থ অবস্থায় (২৪ জানুয়ারী) সোমবার সকাল ৬ টার দিকে পাশের একটি সতী নদীর ধাপে
ওই ছাত্রীকে ফেলে রেখে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় জয়নাল মিয়া ও আছর আলী ও এরশাদ তাদের দেখে ফেলে। পরে অসুস্থ অবস্থায় ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে কালীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এর জরুরী বিভাগে ভর্তি করান।পরে সেখানে তার অবস্থা বেগতিক হওয়ায় সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ওই দিন লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে রেফার্ড করে। বর্তমানে ওই ছাত্রী সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম রসুল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযুক্ত দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.