রংপুরে নববধূর মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় স্বামী গ্রেফতার

রংপুরের কাউনিয়ায় শোবার ঘর থেকে নববধূর গলায় ওড়না পেঁচানো মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় স্বামী মোশাররফ হোসেনকে (২২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে পীরগাছা উপজেলার তালুক উপাশু গ্রামের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার মোশাররফ ওই গ্রামের গোলাপ মিয়ার ছেলে।

এর আগে সোমবার (৩১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় কাউনিয়া উপজেলার মীরবাগ ধর্মেশ্বর গ্রামে বাবার বাড়ি থেকে শারমিন আক্তার (১৮) নামে ওই নববধূর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে মঙ্গলবার দুপুরে মোশাররাফ হোসেনের বিরুদ্ধে কাউনিয়া থানায় মামলা করেন শারমিনের বাবা মহসিন আলী।

জানা গেছে, প্রায় সাড়ে তিন মাস আগে শারমিনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর মেয়েটিকে তার স্বামী প্রকাশ্য ও মোবাইলে মানসিকভাবে নির্যাতন করতো। এমনকি মেয়েটিকে তালাক দেয়ারও হুমকি দেয় মোশাররফ। এতে মেয়েটি মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে। স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে কয়েকদির আগে বাবার বাড়িতে চলে আসে শারমিন। সেখানেও মোশাররফ মোবাইলে গালাগালি ও হুমকি দিত।

এক পর্যায়ে মোশাররফ তার স্ত্রীকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেয়। শারমিনের মোবাইলের কল রেকর্ড শুনে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে যে, সে তার স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে।

কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুমুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় মঙ্গলবার দুপুরে মেয়েটির বাবা আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে মামলা করেন। পরে মোশাররফ হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.