ভ্যান চুরি যাওয়ায় কষ্টে সংসার চলছে আলী হোসেনের

লালমনিরহাট প্রতিনিধি:
লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার ভ্যান চুরি যাওয়ায় অতি কষ্টে সংসার চলছে আলী হোসেন (৫২)। ভ্যান চালিয়ে সংসার চালান। যা আয় হতো,তা দিয়েই এক মেয়ের মাদ্রাসার খরচ ও সংসার চালাত অতি কষ্টে।

গত শুক্রবার (১ এপ্রিল) তার ব্যাটারি চালিত ভ্যানটি বাজার থেকে চুরি হয়ে যায়। একমাত্র আয়ের অবলম্বন হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েন আলী হোসেন। একদিকে সংসারের খরচ চালাতে হিমশিম, অন্যদিকে মেয়ের মাদ্রাসার পড়াশোনার খরচ জোগাতে হতাশ হয়ে পড়ছেন তিনি। পরিবারটি গত পাচঁ দিন থেকে খেয়ে না খেয়ে অতিকষ্টে দিন পাড় করছেন।

আলী হোসেনের বাড়ি উপজেলার বড়খাতা গ্রামের তহসিলদার পাড়ায়। পরিবারের দুই ছেলে এক মেয়ে। স্ত্রী অহিরন নেছা মানসিক রোগী। দুই ছেলে বিয়ে করে আলাদা খান। মেয়ে মরিয়ম নেছা মহিলা মাদ্রাসায় ভর্তি করে দিয়েছেন। জায়গা জমি বলতে তার কিছুই নেই। বাড়ি ভিটের ৭ শতক জমি প্রতিবেশী মরহুম আশরাফ হোসেন মাস্টার থাকার জন্য আলী হোসেন কে দান করেন। সেখানেই কোন মতন বসবাস। ৩০ বছর থেকে ভ্যান চালিয়ে সংসার চালান আলী হোসেন। একমাত্র আয়ের সম্বলটি হারিয়ে নিরুপায় হয়ে গেছে। এদিকে মেয়ের পড়াশোনার খরচ অন্যদিকে সংসার ও স্ত্রীর ঔষধ কিনতে না পারে নিদারুণ কষ্টে দিনযাপন করছেন পরিবারটি।

আলী হোসেন বলেন, বড়খাতা বাজারে ব্যাটারি চালিত ভ্যান তালাবদ্ধ রেখে বাজার খরচ করতে যাই। বাজার শেষে এসে দেখি ভ্যানটি নেই। এসময় বিভিন্ন জায়গায় হন্যে হয়ে খুঁজে না পেয়ে হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরি।

তিনি আরও বলেন,এনজিওর কাছ থেকে ঋণ নিয়ে ব্যাটারিচালিত একটি ভ্যান কিনি। ভ্যানটি চালিয়ে আমি সংসার চালাই। আমার কোনো অর্থ সম্পদ নেই তাই সমাজের হৃদয়বান ব্যক্তির কাছে একটা অনুরোধ আমাকে যদি একটি ভ্যান কিনে দেয়া হয় তাহলে আমি আপনাদের জন্য দোয়া করব। এই রমজান মাসে সংসার চালাতে খুবই কষ্ট আছি।

প্রতিবেশী আব্দুল আজিজ জানান, একমাত্র ভ্যানটি হারিয়ে সে নিরুপায় হয়ে গেছে। এই রমজান মাসে বাজার কিভাবে করবে তার কোন উপায় নেই তার। সে তার পরিবার নিয়ে অনেক কষ্টে আছেন।

এ বিষয়ে বড়খাতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু হেনা মোস্তফা জামাল সোহেল বলেন,ভ্যানটি বড়খাতা বাজার থেকে চুরি গেছে বিষয়টি জেনেছি। আলী হোসেন অনেক গরিব মানুষ সমাজের কেউ যদি তাকে একটু সহযোগিতা করে তাহলে সে একটা নতুন ভ্যান কিনতে পারবে।