লালমনিরহাট সীমান্তে ভারতীয় নাগরিকের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ
লালমনিরহাটের আদিতমারী সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর গুলিতে সেরাজুল মিয়া (৪৭) নামে একজন ভারতীয় নাগরিকের গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করেছেন পুলিশ।

রোববার (১০ এপ্রিল) ভোরে উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের চওড়াটার সীমান্ত পিলার ৯২৪/১২-এস এর নিকট ভারতের অভ্যন্তরে ভারতের ৭৫ ব্যাটালিয়ন বিএসএফ এর পদ্মা ক্যাম্পের এলাকায় এ গুলির ঘটনা ঘটে।

নিহত সেরাজুল মিয়ার বাড়ি ভারতের কুচবিহার জেলার দীনহাটা থানার টুতিয়ার খুটি গ্রামের নিজো মিঞা ছেলে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, রোববার সকাল আটটার দিকে দুর্গাপুরের ওই এলাকায় মরদেহ পরে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। পরে বিষয়টি বিজিবি ও আদিতমারী থানা পুলিশকে জানানো হয়। খবর পেয়ে বিজিবির সদস্য ও আদিতমারী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে মরদেহের পরিচয় শনাক্ত করেন।

নিহত সেরাজুল মিয়া ভারতীয় নাগরিক এবং তিনি গরু পারাপারের সাথে যুক্ত। গরু নিয়ে সীমান্ত দিয়ে রাতের আধারে বাংলাদেশে পার হওয়ার সময় বিএসএফের গুলিতে তার মৃত্যু হয়। বাংলাদেশী ভেবে ভারতীয় বিএসএফ গুলি করে তাকে হত্যা করেছে বলে ধারণা এলাকাবাসীর।

দূর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বলেন, বাংলাদেশের অংশ একজন ভারতীয় নাগরিকের গুলিবিদ্ধ লাশ দেখতে পেয়েছি। স্থানীয় থানা পুলিশ তার লাশ ময়নাতদন্তের পর ভারতীয়দের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এ বিষয়ে আদিতমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোক্তারুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে আদিতমারী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেছেন। তার মরদেহ লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হবে।

লালমনিরহাট ১৫ বিজিবি এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান, ভারতীয় ৭৫ ব্যাটালিয়ন বিএসএফ এর পদ্মা ক্যাম্পের টহল দল ৪ রাউন্ড গুলি চালিয়ে হত্যা করেন। বাংলাদেশের অভ্যন্তরে দূর্গাপুর কুঠিবাড়ি নামক স্থানে একটি লাশ পড়ে ছিল।

রবিউল হাসান/লালমনিরহাট/০১৭১৬-৭৩২৪২৮