পীরগাছায় নকল সনদে আনসার কমান্ডার নিয়োগ!


মোঃ একরামুল ইসলাম, পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি:
রংপুরের পীরগাছায় অর্থের বিনিময়ে নিয়মবর্হিভূত ভাবে ভুয়া সনদে আনসার কমান্ডার নিয়োগ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

ভুয়া সনদ ছাড়াও জন্ম নিবন্ধনও ভূয়া বলে অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনার সাথে তৎকালীন উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা এবং উপজেলা আনসার ভিডিপি অফিসের প্রশিক্ষক আজম মিয়া জড়িত বলে অভিযোগ করছেন আরেক আনসার কমান্ডার।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট একাধিক দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করা হলেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি কর্তৃপক্ষ। ফলে আনসার সদস্যদের মাঝে বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।


অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নে ১৯৮৭ সাল থেকে আনসার কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন আব্দুর রউফ মিয়া। তিনি দায়িত্ব পালন করা অবস্থায় গত ২০১৮ সালে ওই পদে নিয়োগের ব্যবস্থা চালু হলে আব্দুর রউফ মিয়ার কাছে মোটা অংকের টাকা দাবি করেন প্রশিক্ষক আজম মিয়া। তার এ দাবির টাকা দিতে না পারায় আজম মিয়া কৌশলে তৎকালীন উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা সাইফুল ইসলামের যোগসাজসে ভূয়া সনদধারী খলিলুর রহমান নামে একজনকে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করেন।

আনসার কমান্ডার হিসেবে ৫০ বছরের উর্ধ্বে নিয়োগের নিয়ম না থাকলেও খলিলুর রহমান ভুয়া সনদ এবং ভূয়া জন্ম নিবন্ধন তৈরি করে বয়স কম দেখান। এ অবস্থাতেই ওই দুই কর্মকর্তা মোটা অর্থের বিনিময়ে কৌশলে তাকে নিয়োগ পাইয়ে দেন। খলিলুর রহমান দীর্ঘদিন চট্রগ্রামে সিকিউরিটি গার্ডে কর্মরত ছিল। পরে এলাকায় এসে আনসার ভিডিপির সদস্য পরিচয় দিয়ে স্থানীয় লোকজনের সাথে নানা ভাবে প্রতারণা করে আসছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এছাড়াও প্রশিক্ষক আজম মিয়া গ্রামে মৌলিক প্রশিক্ষনের নামে অর্থ আদায়, পূজা, ভোট গ্রহণের দায়িত্ব পালনে আনসার নিয়োগে অবৈধ ভাবে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।


এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আজম মিয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, কমান্ডার নিয়োগের বিষয়টি জেলা ও তৎকালীন উপজেলা কর্মকর্তা ভালো বলতে পারবেন।
এ প্রসঙ্গে পীরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমীন প্রধান বলেন, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.